কৃষি তথ্যকৃষির তথ্যকৃষির প্রযুক্তিছাদ কৃষিছাদবাগান খুঁটিনাটিছাদে বাগানটবে চাষ পদ্ধতিফুল চাষসাম্প্রতিক পোষ্ট

গোলাপ গাছের পরিচর্যা

গোলাপ গাছের পরিচর্যা যে কোনো অনুষ্ঠানের পরিপূর্ণতা আনে এক গুচ্ছ ফুল। ফুল পছন্দ করে না এমন মানুষ নেই বললেই চলে। নিজেদের একান্ত মুহূর্ত রাঙিয়ে তোলা থেকে শুরু করে নতুন পথ চলার সময়কে সরণীয় করে রাখতে ফুলের তুলনা মেলা ভার। আর এসব ফুলের মধ্যে গোলাপের নাম আসে একটু আলাদা ভাবে। গোলাপের যেমন আছে নিজস্ব এক অভিরূপ তেমনি এর শোভা সৌন্দর্য পিয়াসু মানুষের কাছে এক পরিতৃপ্তি। গোলাপ মূলত শীতকালীন ফুল। তবে এর চাহিদা আর সৌন্দর্য একে বছরের সব সময় হাতের নাগালে নিয়ে এসেছে। একটা সময় বছরের কেবল একটি মৌসুমে এ গোলাপ গাছের চাষ করা হলেও এখন এর চাষ করা হয় সারা বছরজুড়ে। গোলাপের মাঝেও আছে নানা রঙের আর ধরনের ভিন্নতা। অনেকের দৃষ্টি কেবল লাল গোলাপ পর্যন্ত সীমিত থাকলেও কালো, খয়েরি, গোলাপি, সাদা গোলাপের মতো নানা রঙের গোলাপ সবাইকে আকৃষ্ট করে। গোলাপ মূলত শীত আর নাতিশীতোষ্ণ জাতীয় ফুল। বেশি উষ্ণ কিংবা আদ্র কোনো আবহাওয়াই গোলা...

বিস্তারিত পড়ুন
ছাদ কৃষিটবে চাষ পদ্ধতিফুল চাষবাগান

বেলি ফুল চাষ পদ্ধতি

বেলি ফুল চাষ পদ্ধতি বাংলাদেশের অধিকাংশ উৎসব অনুষ্ঠানে ব্যবহৃত ফুলের তোড়া, ফুলের মালাতে সুগন্ধীফুল হিসাবে বেলির কদর আছে। উৎসব ও অনুষ্ঠান বেলিফুল ব্যবহৃত হয়। এটি একটি অর্থকরী ফুল। জাত তিন জাতের বেলি ফুল দেখা যায়। যথা: ১। সিঙ্গল ধরনের ও অধিক গন্ধযুক্ত। ২। মাঝারি আকার ও ডবল ধরনের। ৩। বৃহদাকার ডবল ধরনের। বংশ বিস্তার বেলি ফুল গুটি কলম, দাবা কলম ও ডাল কলম পদ্ধতির মাধ্যমে বংশবিস্তার করা হয়। জমি চাষ ও সার প্রয়োগ বেলে মাটি ও ভারী এঁটেল মাটি ব্যতীত সব ধরনের মাটিতে বেলি ফুল চাষ করা যায়। জমিতে পানি সেচ ও পানি নিকাশের ব্যবস্থা থাকা ভালো। জমি ৪-৫টি চাষ ও মই দিয়ে ঝুরঝুরা ও সমান করতে হবে। জমি তৈরির সময় জৈব সার, ইউরিয়া, ফসফেট এবং এমপি প্রযোগ করতে হবে। প্রায় ১ মিটার অন্তর চারা রোপণ করতে হবে। চারা লাগনোর পর ইউরিয়া প্রয়োগ করে পানি সেচ দিতে হবে। কলম বা চারা তৈরি গ্রীষ্মের শেষ হতে বর্ষার শেষ পর্যন্ত ব

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষির তথ্যছাদ কৃষিছাদবাগান খুঁটিনাটিছাদে বাগানটবে চাষ পদ্ধতিফুল চাষবাগানবারান্দায় বাগান

জিনিয়া ফুলের চাষ পদ্ধতি (বানিজ্যিক এবং টবে)

জিনিয়া ফুলের চাষ পদ্ধতি (বানিজ্যিক এবং টবে) মৌসুমি ফুলের মধ্যে এটি বেশ সুন্দর ও আকর্ষণীয় একটি ফুল। জিনিয়া শীতকালীন ফুল হলেও সারা বছরই এর চাষ করা যায়। গাছ ৬০-৭০ সেমি. লম্বা হয়। গাছে ডালের সংখ্যা কম হয়। ফুলের রং লাল, গোলাপি, বেগুনি ও হলুদ প্রভৃতি হয়ে থাকে। আকার ও রঙের বৈচিত্রে ডালিয়া ও চন্দ্র মল্লিকার সাথে তুলনা করা যেতে পারে। ব্যবহারঃ কাট ফ্লাওয়ার হিসেবে ফুলদানিতে সাজাবার জন্য এবং তোড়া তৈরির জন্য এ ফুল অদ্বিতীয়। জাত ও মৌসুম: জাতঃ জিনিয়ার জনপ্রিয় জাত হচ্ছে ডাবল ফুল। এটি অবিকল চন্দ্র মল্লিকার মত। উৎপাদন মৌসুমঃ জুন মাসের মাঝামাঝি এবং অক্টোবর মাসে টবে গামলায় বা বীজতলায় বীজ বপন করে চারা প্রস্তুত করতে হয়। মাটি ও জলবায়ু: মাটি ও জলবায়ুঃ হালকা উর্বর দো-আঁশ মাটি এ ফুল চাষের জন্য বিশেষ উপযোগী। জলবসা, ভিজা ও স্যাঁতসেতে জমিতে এ ফুল ভালো হয় না। এ ফুলের জন্য বড় দিন, উষ্ণ আর্দ্র আবহাওয়া আবশ্যক। কিন্তু

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি তথ্যকৃষির তথ্যফুল চাষ

যশোরে ফুল চাষের নতুন সম্ভাবনার নাম ‘লং স্টিক গোলাপ’

যশোরে ফুল চাষের নতুন সম্ভাবনার নাম ‘লং স্টিক গোলাপ’ যশোরের গদখালিতে বিশেষ ধরণের লং স্টিক গোলাপ চাষ হচ্ছে। দেশে প্রথমবারের মতো এ জাতীয় গোলাপের চারা লাগিয়েছেন গদখালির ফুল চাষি ইনামুল হোসেন। যা ইতোমধ্যে বাজারে উঠতে শুরু করেছে। ভারতের পুনে থেকে গোলাপের চারা এনে ৪০ শতক জমিতে লং স্টিক গোলাপ চাষ করেন ইনামুল। চারা কেনা, শেড তৈরি, পরিচর্যাসহ এ পর্যন্ত তার খরচ হয়েছে ১০ লাখ টাকা। এরই মধ্যে বাজারে কয়েকদফায় বিক্রি করেছেন ফুল। ফুল বিক্রি করে এক বছরের মধ্যে তার সব বিনিয়োগ উঠে আসবে বলে আশা করছেন তিনি। ইনামুল হোসেনের লং স্টিক গোলাপের বাগান দেখে এলাকার অনেক ফুল চাষি এ ফুল চাষে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। তবে ওই গোলাপের চারা সহজলভ্য না হওয়ায় প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হচ্ছে। অন্যজাতের গোলাপ গাছ থেকে তোলার পর চার/পাঁচদিনের বেশি রাখা যায় না। লং স্টিক গোলাপ দু’সপ্তাহ পর্যন্ত ভালো থাকে। এ অঞ্চলে লং স্টিক গোলাপের চাষ সম্প্

বিস্তারিত পড়ুন
ছাদ কৃষিজৈব বালাইনাশকটবে চাষ পদ্ধতিফুল চাষরোগ দমন

টিপস এন্ড ট্রিকস জবা গাছের যত্ন

টিপস এন্ড ট্রিকস জবা গাছের যত্ন ফুল ভালবাসেন না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। আমাদের দেশের খুব কমন একটা ফুল জবা। সারাবছর ফুল হয় বলে আর অনেক দিন বেচে থাকার কারণে আমাদের দেশের অনেকেই বাড়ির ছাদের টবে এই ফুলগাছ লাগিয়ে থাকে। জবা সাধারণতঃ লাল রঙের হলেও, পরবর্তিতে অনেক সংকর বের করা হয়েছে । যার জন্য এখন সাদা, হলুদ , গোলাপী, কমলা থেকে শুরু করে মিশ্রিত রঙের জবা ফুলও দেখা যায় ।   একটু পরিকল্পনা করে টবে জবাগাছ রোপণ করলে সারা বছরই কিছু না কিছু ফুল পাওয়া যাবে।   সঠিক চারা নির্বাচন: প্রথমেই টবের জন্য নার্সারী থেকে ছোট আকাড়ের মোটা কান্ডের সুস্হ সবল চারা নির্বাচন করে সর্বনিম্ন ১২ ইন্চি টবে চারাটি রোপন করতে হবে।   মাটি প্রস্তুত করন: টবে চারা রোপণের আগে শুকনো গোবর ৪০%, বেলে দোঁআশ মাটি ৫০%, লাল সিলেকশন বালি ১০% মিশিয়ে মাটি তৈরি করে নিতে হবে। সঙ্গে একমুঠো হাঁড়ের গুঁড়া, দু'মুঠো...

বিস্তারিত পড়ুন