পোকামাকড় ও রোগবালাইফসলের রোগ বালাই দমনসাম্প্রতিক পোষ্ট

লাউ গাছের রোগবালাই দমন

লাউ গাছের রোগবালাই দমন লাউ গাছের রোগবালাই দমন করতে বেশ কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে। সাধারনত প্রায় সব ধরনের গাছে রোগ বালাই হয়ে থাকে। এখানে লাউ গাছের রোগ বালাই দমনের প্রাকৃতিক ও রাসায়নিক দুটি পদ্ধতিই আলোচনা করা হলো। লাউ গাছের রোগ বালাই দমন এর প্রাকৃতিক পদ্ধতি ১, আপনার লাউয়ের মাচায় পাখি বসার ব্যবস্থা করে দিন । পাখি ক্ষতিকর সব পোকা খেয়ে এর দমন করতে সহায়তা করে। ২, এছাড়া একধরনের জৈব ফাঁদ পাওয়া যায় বাজার থেকে এগুলো কিনে এনে ব্যবহার করলে অধিকাংশ পোকা মাকড় এর মধ্যে ধরা পড়ে। ৩, জৈব কীটনাশক প্রয়োগ, লাউ গাছের রোগ বালাই দমন করতে জৈব কীটনাশক ব্যবহার করতে পারেন। এই ধরনের কীটনাশক নিম পাতা সেদ্ধ করে বা গাঁদা ফুলের পাতার রস থেকে তৈরি করা যায়। এছাড়া নিমের তেল স্প্রে করেও প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে কীট পতঙ্গ দমন করা সম্ভব। ৪, লাউ গাছের রোগবালাই দমন করতে বিষ টোপ ব্যবহার করেও পোকা দমন করা যায়। সে...

বিস্তারিত পড়ুন
অন্যান্য ফসলচাষাবাদ পদ্ধতিছাদ কৃষিপোকামাকড় ও রোগবালাইসাম্প্রতিক পোষ্ট

মাল্টা গাছের রোগবালাই ও চিকিৎসা

মাল্টা গাছের রোগবালাই ও চিকিৎসা মাল্টা গাছের লিভমাইনার পোকা লিভ মাইনার মাল্টা গাছে একটি মারাত্মক ক্ষতি কারি পোকা । এ পোকা আক্রমণ করে গাছের ছোট এবং কচি সবুজ পাতা খেয়ে ফেলে। এছাড়া এটি ফলের উপর আঁকা বাঁকা সূরঙগের মত দাগ সৃষ্টি করে। প্রথম অবস্থায় আক্রমণ কৃত পাতা গুলো ছিড়ে পুড়িয়ে ফেলতে হবে। হলুদ ফাঁদ তৈরি করে এই পোকা দমন করা সম্ভব। কিন্তু আক্রমণের পরিমাণ অতিরিক্ত বেশি হলে লিফ মাইনার পোকা দমন করতে কিনালাক্স ২ এমএল প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে। এই ওষুধ টি প্রতি ১৫ দিন অন্তর অন্তর গাছে স্প্রে করলে এধরনের পোকার আক্রমণ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। মাল্টা গাছের ডাম্পিং অফ রোগ মাল্টা গাছে ড্যাম্পিং অফ রোগ হলে গাছের গোড়া পচে যায়। এটি মূলত বর্ষার সময় দেখা যায়। এছাড়া অতিরিক্ত পানি সেচ দেয়ার কারণে অনেক সময় এ সমস্যাটি হয়ে থাকে। এটি দূর করতে রেডোমিল্ড গোল্ড ২ গ্ৰাম ১ লিটা...

বিস্তারিত পড়ুন
পোকামাকড় ও রোগবালাইফসল সংরক্ষণফসলের রোগ বালাই দমন

লিচুর ফল ঝরে যাওয়া সমস্যা

লিচুর ফল ঝরে যাওয়া সমস্যা ফল ঝরা লিচুর সাধারণ সমস্যা । আবহাওয়া শুষ্ক হলে বা গাছে হরমোনের অভাব থাকলে ফল ঝরে পড়তে পারে । গুটি অবস্থায় ফল ঝরতে পারে । ফল বাদামী থেকে কাল রং ধারণ করে । ব্যবস্থাপনা: • শুষ্ক আবহাওয়া বিরাজ করলে সেচের ব্যবস্থা করতে হবে । ফল মটর দানা এবং মার্বেল আকার অবস্থায় ম্যাগণল প্রতি ১০ লিটার পানিতে ৫ মিলি হারে মিশিয়ে স্প্রে করতে হবে ।গুটি বাধার পর ম্যাকচিলি প্রতি ১০ লিটার পানিতে ৩-৫ গ্রাম হারে মিশিয়ে গাছে স্প্রে করতে হবে । ...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি তথ্যপোকামাকড় ও রোগবালাইফসলের রোগ বালাই দমন

আমের দাদ রোগ বা স্ক্যাব

আমের দাদ রোগ বা স্ক্যাব আমের স্ক্যাব রোগ হলে কচি আমের গুটি আক্রান্ত হয় ঝড়ে যায় । এর প্রতিকার হল ১. সময়মত প্রুনিং করে গাছ ও বাগান পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখা ২. গাছের নিচে ঝড়ে পড়া পাতা, মুকুল বা আমের গুটি অপসারণ করা। ৩. কার্বেন্ডাজিম বা ম্যানকোজেব ২ গ্রাম / লি. হারে পানিতে মিশিয়ে ১৫ দিন পরপর ৩-৪ বার স্প্রে করা । পরবর্তীতে যা যা করবেন না ১. বাগান অপরিচ্ছন্ন রাখবেন না পরবর্তীতে যা যা করবেন ১.ফল সংগ্রহ শেষ হলে গাছের মরা ডালপালা, ফলের বোটা, রোগ বা পোকা আক্রান্ত ডাল পালা ও অতিঘন ডাল পালা ছাটাই করে পরিস্কার করে দিন ২. পরিস্কার করার পর একটি ছত্রাকনাশক ও একটি কীটনাশক দ্বারা পুরো গাছ ভালভাবে স্প্রে করুন ৩. নিয়মিত বাগান পরিদর্শন করুন। ...

বিস্তারিত পড়ুন
পোকা দমনপোকামাকড় ও রোগবালাইপোকামাকড় দমনফসলের রোগ বালাই দমন

আমের মিলিবাগ সমস্যা

আমের মিলিবাগ সমস্যা সাদা সাদা অসংখ্য পোকা একসাথে থাকে কখনও কখনও বিচ্ছিন্ন ভাবেও থাকে।এরা রস চুষে খায় এবং এক ধরনের আঠালো মিষ্টি রস নিঃস্বরণ করে যা খাবার জন্য পিপিলিকার আগমন ঘটে। এর আক্রমণ বেশি হলে শুটি মোল্ড ছত্রাকের আক্রমণ ঘটে এবং আক্রান্ত অংশ এমনকি পুরো গাছ মরে যায় । এর প্রতিকার হল ১. প্রাথমিক অবস্থায় হাত দিয়ে পিশে পোকা মেরে ফেলা ২. ব্রাশ দিয়ে ঘসে পোকা মাটিতে ফেলে মেরে ফেলা ।৩. ইমিডাক্লোরোপ্রিড গ্রুপের কীটনাশক যেমন : ইমিটাফ বা ২ মি.লি. / লি. হারে পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করা। পরবর্তীতে যা যা করবেন না ১. বাগান অপরিচ্ছন্ন রাখবেন না পরবর্তীতে যা যা করবেন ০. ফেব্রুয়ারি- মার্চ মাসের দিকে গাছের গোড়ায় আঠাযুক্ত ফিতা বা প্লাস্টিকের মসৃণ ফিতা পেচিয়ে বা ফানেল স্থাপন করুন তাতে পোকা গাছ বেয়ে উপরে উঠতে পারবে না। ১.ফল সংগ্রহ শেষ হলে গাছের মরা ডালপালা, ফলের বোটা, রোগ বা পোকা আক্রান্ত ড...

বিস্তারিত পড়ুন