কৃষি সংবাদনিরাপদ খাদ্য

রাণীনগরে জনপ্রিয় হচ্ছে মালচিং পদ্ধতিতে বিষমুক্ত সবজি চাষ

রাণীনগরে জনপ্রিয় হচ্ছে মালচিং পদ্ধতিতে বিষমুক্ত সবজি চাষ মালচিং মূলত চীন ও জাপান দেশের বিষমুক্ত সবজি চাষের একটি পরিবেশবান্ধব পদ্ধতি। বর্তমানে বাংলাদেশেও কৃষি বিভাগের উদ্যোগে পাইলট প্রোগ্রাম হিসেবে বিভিনś স্থানে এই পদ্ধতিতে বিষমুক্ত সবজি চাষ শুরু হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে নওগাঁর রাণীনগর উপজেলাতে এই প্রথম মালচিং পদ্ধতিতে চাষ করা হয়েছে টমেটো। এই পদ্ধতিতে উৎপাদিত বিষমুক্ত সবজির ফলন ও দাম ভালো পাওয়ায় উৎসাহিত হচ্ছেন স্থানীয় অনেক কৃষকরা। কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে উৎপাদিত সকল সবজিতেই ব্যবহার করা হচ্ছে মাত্রারিক্ত কীটনাশক যা মানব দেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। কীটনাশক কম ব্যবহার করে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনের জন্য কৃষি বিভাগ প্রতিনিয়তই উদ্ভাবন করছে পরিবেশবান্ধব নানা প্রযুক্তি ও পদ্ধতি। সেই পরিবেশ বান্ধব কৃষি প্রযুক্তির মধ্যে একটি মালচিং পদ্ধতি। এই পদ্ধতিতে প্রথমেই পরিমাণমতো খাবার দিয়ে জমি প্র...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি সংবাদনিরাপদ খাদ্য

বিষমুক্ত শাক সবজি চাষে একজোট হয়েছে তিলাই জয়চন্ডি গ্রাম

বিষমুক্ত শাক সবজি চাষে একজোট হয়েছে তিলাই জয়চন্ডি গ্রাম বিষমুক্ত শাক সবজি চাষে একজোট হয়েছেন একটি গ্রামের সব কৃষক। শীত মৌসুম থেকে সম্পূর্ণ পরিবেশ বান্ধব রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ছাড়াই নিরাপদ সবজি আবাদ করছেন তারা। এতে মানুষকে বিষমুক্ত শাক সবজি খাওয়াতে পারছেন এই ভেবে গর্বিত কৃষকরা। এই কৃষকদের সবাই নীলফামারী সদরের সোনারায় ইউনিয়নের তিলাই জয়চন্ডি গ্রামের বাসিন্দা। এই প্রচেষ্টার কারণে গ্রামটি এখন নিরাপদ সবজি গ্রাম বা অরগানিক কৃষি গ্রাম হিসেবে পরিচিতি পাচ্ছে। বিষমুক্ত সবজি গ্রাম ও উৎপাদনকারী কৃষকগণের সঙ্গে মতবিনিময় সভা করেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, উপপরিচালক কৃষিবিদ নিখিল চন্দ্র বিশ্বাস, সিভিল সার্জন ডা. রণজিৎ কুমার বর্মণ, সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কামরুল ইসলাম ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শা...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি তথ্যকৃষি স্বাস্থ্যকৃষির তথ্যনিরাপদ খাদ্য

দুধ-আনারস একসঙ্গে খেলে আসলে কী হয়?

দুধ-আনারস একসঙ্গে খেলে আসলে কী হয়? আনারস খুব উপাদেয় ফল। এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ এবং সি। রয়েছে ক্যালসিয়াম,পটাশিয়াম ও ফসফরাস। আর দুধকে আমরা সুষম খাদ্য হিসেবে বিবেচনা করি। তবে আনারস আর দুধ একসঙ্গে খেলে মানুষ বিষক্রিয়া হয়ে মারা যায়-এ রকম একটি ধারণা প্রচলিত আছে। বাড়ির বয়োজ্যেষ্ঠরা অনেক সময় ছোটদের এ খাবার একসঙ্গে খেতে নিষেধ করেন। তবে আসলেই কি এ রকম হয়? আসুন জেনে নিই আসলে কী হয় আনারস আর দুধ একসঙ্গে খেলে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের ডিন অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ বলেন, ‘আনারস ও দুধ একসঙ্গে খেলে বিষক্রিয়া হয়ে কেউ মারা যায় এই ধারণা ভুল। এগুলো এক ধরনের ফুড ট্যাবু বা খাদ্য কুসংস্কার।’ অধ্যাপক আবদুল্লাহ বিষয়টি ব্যাখ্যা করে বলেন, ‘আনারস একটি এসিডিক এবং টকজাতীয় ফল। দুধের মধ্যে যেকোনো টকজাতীয় জিনিস দিলে দুধ ছানা হয়ে যেতে পারে বা ফেটে যেতে পারে। এটা কমলা ও দুধের বেলায়

বিস্তারিত পড়ুন
উন্নত প্রযুক্তিকৃষি স্বাস্থ্যনিরাপদ খাদ্য

খাবারে ফরমালিন দূর করুন মাত্র ১৫ মিনিটে!

খাবারে ফরমালিন দূর করুন মাত্র ১৫ মিনিটে! শাকসবজি, ফলমুল কিংবা মাছ যে কোনো কিছু কিনতে গিয়ে সবাই ফরমালিনের আতংকে থাকেন। হাতের কাছের জিনিস দিয়েই নতুন পদ্ধতিতে আপনি থাকতে পারেন ফরমালিন থেকে নিশ্চিন্তে। আপনার হাতের কাছে যদি থাকে ভিনেগার আর রান্না বসানোর আগে মাত্র ১৫ মিনিট সময়, তাহলেই আপনার পরিবারকে আপনি সুরক্ষিত রাখতে পারবেন ফরমালিনসহ যে কোনো ক্ষতিকর রাসায়নিক দ্রব্য থেকে। পদ্ধতি: ১) এক লিটার পানিতে এক কাপ ভিনেগার মিশিয়ে শাকসবজি, ফলমুল কিংবা মাছ ১৫ মিনিট রাখুন। ২) ১৫ মিনিট পর ধুয়ে নিন ভালো করে। ব্যাস! সব খাবার এখন ফরমালিনসহ যে কোনো বিষাক্ত রাসায়নিক মুক্ত। ৩) এ পদ্ধতিটিতে ভিনেগার ব্যবহার করা হয় কারণ ভিনেগার একটি শক্তিশালী এসিড জাতীয় পদার্থ হওয়ায় এটি যে কোনো ব্যাকটেরিয়ার ৯৮ শতাংশ দূর করতে পারে। ৪) ভিনেগারের এই জীবাণু নাশকতার জন্যই এটা আপনার পরিবারকে রাখবে সুরক্ষিত। ৫) ভিনেগার না থাকলে ফল

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি তথ্যকৃষি স্বাস্থ্যনিরাপদ খাদ্য

বাসের ভিতর বিক্রি করা শসা, আমড়া তরতাজা আর ফ্রেশ দেখাতে যা মেশানো হচ্ছে জানলে চমকে যাবেন!

বাসের ভিতর বিক্রি করা শসা, আমড়া তরতাজা আর ফ্রেশ দেখাতে যা মেশানো হচ্ছে জানলে চমকে যাবেন! দূরপাল্লার বাস ছুটছে রাজধানীর সায়দাবাদ থেকে কুমিল্লার দিকে। গত মাসের শেষ দিককার ঘটনা। কাঁচপুর ব্রিজের কাছে ২৫/৩০ প্যাকেট খিরা নিয়ে বাসে উঠলো হকার। তৃৃষ্ণার্ত মুখে আকর্ষণ তৈরির মতো কচি, সবুজ' কয়েক প্যাকেট খিরা হাতে তার। কয়েকজন যাত্রী কয়েক প্যাকেট শসা নিয়ে নিলেন। হকারের কাছ এক প্যাকেট চাইতেই সহযাত্রী উন্নয়নকর্মী সৈয়দ সাইফুল আলম শোভন পাশের সিট থেকে বলে উঠলেন, আরে এসব খিরা খাইয়েন না, এগুলোতে রং দেওয়া।' শোভনের কথা শেষ হতে না হতেই হকারও কোনো রাখঢাক না করে বলল, জ্বী স্যার রং দিসি, মিছা কথা কমু না।' হকার রশিদ। দীর্ঘদিন কাঁচপুর এলাকায় মেৌসুমি ফল বিক্রি করেন যানবাহনে। বাসের পেছন অংশ থেকে শসা বিক্রি করে রশিদ যখন সামনের অংশে আবার আসে তখন ছবি তুলতে চাইলেই স্যার এইট্যা কইরেন না, এইটা কইরেন না' বলতে বলতে তাড়া

বিস্তারিত পড়ুন