কৃষি স্বাস্থ্যদানাদার ফসল

নতুন সম্ভাবনাময় সুইট কর্ন চাষ পদ্ধতি

সম্ভাবনাময় সুইট কর্ন চাষ পদ্ধতি  বেবিকর্ন বা কচি ভুট্টা এক ধরনের উচ্চ ফলনশীল জাতের ভুট্টা  শ্রেনীর ফসল। বাংলাদেশে বর্তমানে এই জাতের ফসল চাষাবাদ শুরু হয়েছে। এটি একাধারে একটি পুষ্টিকর ও লাভজনক ফসল। বলে রাখা ভাল যে, এই জাতের সুইট কর্ন কচি অবস্থায় সবজি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। দেশে প্রতিদিন ৩-৪ টন বেবিকর্ন ব্যবহার হচ্ছে। চাইনিজ রেস্টুরেন্টে, পাঁচতারা হোটেলে, ফাষ্টফুড এমনকি অভিজাত বাসাবাড়িতে সুইট কর্ন এর ব্যবহার বেশি। বলাবাহুল্য, আমাদের উৎপাদিত ভুট্টা থেকে এই সুইট কর্ন চাষাবাদ ও বীজ সম্পূর্ণ আলাদা। বিশেষ করে থাইল্যান্ড থেকে এই বীজ সংগ্রহ করে চাষাবাদ করা হচ্ছে। বিশ্বের প্রায় সব দেশেই ব্যাপকভাবে সুইট কর্ন ব্যবহার হচ্ছে। বিশ্বের অনেক দেশে বেবিকর্নের উৎপাদন হলেও থাইল্যান্ড উৎপাদনের দিক থেকে শীর্ষস্থানে রয়েছে। চাষ পদ্ধতি: আমাদের দেশেও ব্যাপক আকারে বেবিকর্নের/সুইট কর্ন চাষ সম্ভব। সঠিক ব্যবস্থ

বিস্তারিত পড়ুন
অন্যান্য ফসলচাষাবাদ পদ্ধতিদানাদার ফসল

ছোলার চাষ পদ্ধতি ও উপকারিতা

ছোলার চাষ পদ্ধতি ও উপকারিতা আমাদের দেশে ছোলার ডাল বেশ জনপ্রিয় ও সুস্বাদু খাবার। আমাদের দেশের প্রায় সকল জেলায় ছোলার চাষ করা যায তাই আজকের কৃষির আজকের প্রতিবেদন ছোলার চাষ পদ্ধতি এবং এর উপকারিতা। এটিএকটি আমিষ জাতীয় ডাল ফসল।ছোলাউৎপাদন করে পারিবারিক পুষ্টির চাহিদাপূরণের পাশাপাশি অতিরিক্ত উৎপাদনবাজারে বিক্রি করে বাড়তি আয় করা সম্ভব।নিচে ছোলা চাষের পদ্ধতি সম্পর্কে বিস্তারিত দেওয়া হল: পুষ্টিগুন ছোলাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ স্নেহ, খনিজ দ্রব্য ও এমাইনো এসিড। বীজ নির্বাচন ছোলা চাষের জন্য বীজ হতে হবে তেজস্বী, উচ্চগুণমানসম্পন্ন, রোগমুক্ত ও সুস্থ বীজ।বীজবাহিত রোগ এড়ানোর জন্য বপন করার আগে বীজ শোধন করে নিলে ভাল হবে। বীজের হার বিঘা প্রতি জমিতে ছোলা চাষের জন্য&

বিস্তারিত পড়ুন
অন্যান্য ফসলকৃষি উদ্যোক্তাচাষাবাদ পদ্ধতিদানাদার ফসল

সরিষা চাষ ,সরিষা থেকে মধু ও সরিষা তেলের উপকারিতা

সরিষা চাষ ,সরিষা থেকে মধু ও সরিষা তেলের উপকারিতা সরিষা চাষ সরিষা চাষ কনটেন্টটিতে সরিষা চাষ কীভাবে করা যায়, চাষ করার জন্য প্রশিক্ষণের প্রয়োজন আছে কিনা, এক বিঘা জমির উৎপাদন খরচ, এর পুষ্টিমান এবং সর্বোপরি এর মাধ্যমে কীভাবে বাড়তি আয় করা সম্ভব, সে বিষয় সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়েছে। সরিষা চাষ     সরিষা বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান তৈল বীজ ফসল। এর ইংরেজি নাম Mustard ও বৈজ্ঞানিক নাম Brassica spp. সরিষার তেল শহর গ্রাম সবখানে খুবই জনপ্রিয়। আমাদের দেশের অনেক জমিতে সরিষার চাষ হয়ে থাকে। এই চাষ করা সরিষা থেকে প্রতিবছর প্রায় আড়াই লাখ টন তেল পাওয়া যায়। আমাদের দেশের গ্রামের অধিকাংশ মানুষ ভোজ্য তেলের জন্য সরিষার উপর নির্ভর করে। আমাদের দেশে কুমিল্লা, ঢাকা, পাবনা ও রাজশাহীর অনেক জায়গায় এখন ব্যবসায়িক ভিত্তিতে সরিষার চাষ ও বাজারজাত করা হচ্ছে। পুষ্টিগুন সরিষার বীজে গড়ে প্রায় ৪০-৪৪ ভাগ তেল থাকে।&nbs

বিস্তারিত পড়ুন
চাষাবাদ পদ্ধতিদানাদার ফসলমাঠ ফসল চাষ

গম চাষ পদ্ধতি

গম চাষ পদ্ধতি  ফসলের নাম: গম পুষ্টি মূল্যঃ গম হতে যে আটা হয় তার প্রতি ১০০ গ্রাম আটায় আমিষ ১২.১ গ্রাম, শর্করা ৬৯.৪ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৪৮ মিলিগ্রাম, লৌহ ১১.৫ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ২৯ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন বি-১ ০.৪৯ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-২ ০.২৯ মিলিগ্রাম, আঁশ ১.৯ গ্রাম, খনিজ পদার্থ ২.৭ গ্রাম এবং জলীয় অংশ থাকে ১২.২ গ্রাম। ভেষজগুনঃ ব্যবহারঃ গম সাধারণত মানুষের রুটি হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া গমের কুঁড়া গো-খাদ্য হিসাবে ব্যবহৃত হয়। উপযুক্ত জমি ও মাটিঃ উঁচু ও মাঝারি দোআশ মাটি গম চাষের জন্য বেশী উপযোগী। লোনা মাটিতে গমের ফলন কম হয়। জাত পরিচিতিঃ বর্তমানে এদেশে অধিক আবাদকৃত গম জাতের মধ্যে কাঞ্চন, আকবর, অঘ্রাণী ও প্রতিভা রয়েছে। তাছাড়া সৌরভ (বারি গম-১৯) ও গৌরব (বারি গম-২০) নামে ২টি উচ্চ ফলনশীল নতুন জাত অনুমোদিত হয়েছে। গমের জাত কাঞ্চনঃ বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনষ্টিটিউট কর্তৃক ইউপি-৩০১ এবং সি-৩০৬ এর মধ্যে স

বিস্তারিত পড়ুন
অন্যান্য ফসলকৃষি তথ্যকৃষির তথ্যকৃষির প্রযুক্তিচাষাবাদ পদ্ধতিদানাদার ফসলমাঠ ফসল চাষ

দিনাজপুরে ১ যুগে দ্বিগুণ বেড়েছে ভূট্টার চাষ

ভূট্টা বর্তমানে দিনাজপুর জেলার প্রধান অর্থকরী ফসলের মধ্যে একটি। গত এক দশকে এ জেলায় ভূট্টার চাষ কয়েক গুণ বেড়েছে। গত কয়েক বছর ধরে ফলনও হচ্ছে বাম্পার। এক সময় যে সব জমিতে কখনো চাষাবাদ করতে দেখা যেতনা, বর্তমানে সেসব জমিতে ভূট্টা চাষে মেতে উঠেছেন চাষিরা। শুধু অব্যবহৃত জমিই নয়, বোরো, গম, শাকসবজি ইত্যাদি ফসলের জমিতেও এখন ভূট্টার চাষ করা হচ্ছে। এ বিষয়ে সাধারণ চাষিরা বলেন, স্বল্প খরচে অধিক লাভ হওয়ায় অনান্য ফসল চাষ না করে বর্তমানে ভূট্টা চাষে কৃষকের আগ্রহ বাড়ছে। দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, ২০০০ সাল বা এর আগে থেকে দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকায় ভূট্টার চাষ শুরু হয়। কিন্তু ২০০৫ থেকে ব্যাপক হারে এর চাষ বাড়তে থাকে যা বর্তমানে ২০১৬ সালে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক গোলাম মোস্তফা এ বিষয়ে আমার সংবাদকে বলেন, এক যুগে এ জেলায় ভূট্

বিস্তারিত পড়ুন