Improving Agribusiness Insurance & Farmers Law

শুষনি শাক এর উপকারিতা ও গুণাগুণ

সকল সাম্প্রতিক পোষ্ট নোটিফিকেশন পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

শুষনি শাক এর উপকারিতা ও গুণাগুণ

বর্তমান সময়ের এই করোনা কালে অনেকেই খুঁজে থাকেন কীভাবে প্রাকৃতিক শাক সবজি খেয়ে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায়। তাই আজকে আমরা আলোচনা করবো শুষনি শাক এর উপকারিতা ও গুণাগুণ নিয়ে।

পরিচিতি:
সঁতসেঁতে ভূমি, জলাশয়, ধানক্ষেত ও পুকুরের কিনারে শুষনি শাক দেখা যায়। এ উদ্ভিদটি কাদার উপর লতিয়ে বৃদ্ধি পায়। পাতা চার ভাগে বিভক্ত, বৃন্ত সরু ১৫-২০ সে. মি. লম্বা হয়। লতার গাঁট (node) থেকে শিকড় বের হয়ে মাটি আঁকড়ে বিস্তার লাভ করে। আমরুল থেকে শুষনি শাকের তফাত হল যে, শুষনি শাক জলজ এবং পাতা তিন ভাগে বিভক্ত না হয়ে চার ভাগে বিভক্ত। এটিকে অনেকে সুনসুনিয়া, চৌপতিয়া বা চতুম্পত্রী বলে।

বিস্তৃতি:
ভারত-বাংলাদেশ শুষনি শাকের আবাসভূমি। এই গণে প্রজাতির সংখ্যা ৬০ এবং অধিকাংশই বীরুৎ (Herbs) জাতীয়।

চাষ:
শুষনি শাকের চাষের প্রয়ােজন হয় না। শিকড়সহ গিট এক স্থান থেকে অন্য কোনাে স্যাতসেঁতে জায়গায় রােপণ করলে সহজেই বংশবৃদ্ধি হয়।

ঔষধি গুণাগুণ:
১। অনেক বালক-বালিকা বারবার একটি বিষয় পড়েও মনে রাখতে পারে না। আমরা বলি মাথায় কিছু নেই। এদেরকে শুষনি শাকের শুকনাে গুঁড়া ১ গ্রাম আন্দাজ আধা কাপ দুধে একটু চিনি মিশিয়ে ৩/৪ মাস নিয়মিত খাওয়ালে উপকার পাবেন। তবে পূর্ণবয়স্কদের ক্ষেত্রে মাত্রা ২ গ্রাম

২। আবার বয়স একটু বেড়ে গেলে অনেকে বলেন, বয়স হয়ে গেছে, কিছুই মনে রাখতে পারি না। এমনও হয় বিশেষ পরিচিত বা আত্মীয়ের নাম হঠাৎ করে মনে করতে পারেন না। এরূপ অবস্থায় শুষনি শাকের রস ঘিয়ে পাক করে প্রতিদিন ২/১ চা চামচ করে কিছুদিন খেলে আস্তে আস্তে ঐ অসুবিধাটা চলে যাবে।

৩। কাঁচা শুষনি শাক ১০/১২ গ্রাম বেটে রস পানিতে মিশিয়ে ছেঁকে একটু চিনি মিশিয়ে খেলে উচ্চ রক্তচাপ প্রশমিত হয়। শাক শুকনা হলে ৩/ ৪গ্রাম গুঁড়া ৩/৪ কাপ পানিতে মিশিয়ে সেদ্ধ করে ১ কাপ থাকতে নামিয়ে ছেঁকে চিনি মিশিয়ে খেতে হবে।

৪। বিষাক্ত কীটের দংশনে বা হুলের বিষুনিতে শাক বেটে ঐ স্থানে প্রলেপ দিলে জ্বালা-যন্ত্রণা লাঘব হবে।

৫। আয়ুর্বেদশাস্ত্রমতে স্নায়বিক বৈকল্যে অনেকের সারা শরীরে দাহের সৃষ্টি হয়। এমন ক্ষেত্রে শুষনি শাক বেটে গােসলের আগে সারা শরীরে মেখে আধা ঘণ্টা পরে গােসল করে ফেললে শরীরের জ্বালাটা কমে যাবে।

৬| অত্যধিক দুশ্চিন্তায় অনেকের ঘুম হয় না; তন্দ্রা তন্দ্রা ভাব হলেও গভীর ঘুমের অভাব। সেক্ষেত্রে কাচা ১৫ গ্রাম শাক বেটে অথবা শুকনা ৩/৪ গ্রাম শাকের গুঁড়া ৩/৪ কাপ পানিতে সেদ্ধ করে ১ কাপ থাকতে নামিয়ে ছেঁকে ২/৩ চা চামচ দুধ মিশিয়ে প্রতিদিন সন্ধ্যাবেলা কিছুদিন খেলে অনিদ্রা দূর হবে।

সকল সাম্প্রতিক পোষ্ট নোটিফিকেশন পেতে সাবস্ক্রাইব করুন

Comments are closed.