কৃষি তথ্যকৃষি পণ্য পরিচিতকৃষি স্বাস্থ্য

নিমের তেল এর উপকারিতা

নিমের তেল এর উপকারিতা নিমের তেলের গুণাবলীঃনিমের ফল থেকে সরাসরি নিম তেল সংগ্রহ করা হয় বলে এই তেলের বিশুদ্ধতা সম্পর্কে সন্দেহের অবকাশ নেই। তিক্ত স্বাদের এই উপাদানটি আপনার শরীরের অধিকাংশ সমস্যার স্থায়ী সমাধান দিয়ে থাকে। শুধুমাত্র নিমের তেল আপনার কোন কোন উপকার সাধন করে থাকে, চলুন একটু দেখে নেই। ১। ত্বকের যত্নে নিম তেল-নিম তেলের অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বকে সহজে বার্ধক্যের ছাপ পড়তে দেয় না।নিম তেল ফ্যাটি এসিডে সমৃদ্ধ যার ফলে তেলটি সহজে ত্বকের সাথে মিশে যায় এবং সংকোচন-প্রসারণ সহজতর হয়।নিয়মিত নিম তেল ব্যবহার করলে ত্বকের বলিরেখা ও বার্ধক্যজনিত যাবতীয় দাগ দূর করা সম্ভব।নিম তেলে অ্যাসপিরিন জাতীয় উপাদান রয়েছে, যা ব্রণ হওয়ার জন্য দায়ী ব্যাকটেরিয়াগুলোকে ধ্বংস করে। ত্বকের লাল ভাব ও ব্রণের ক্ষত থেকে ব্যথা হলে নিমের তেল তা সারিয়ে তোলে। নিম তেল ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রেখে অ্যাকজিমা প্রতিকার ও প্রতিরোধ ক...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি পণ্য পরিচিতকৃষির তথ্যকৃষির প্রযুক্তি

সবজি ক্ষেতে গুটি ইউরিয়া সার

সবজি ক্ষেতে গুটি ইউরিয়া সার   ফসল উপাদনে নাইট্রোজেন একটি খুবই গুরুত্বপূর্ন পুষ্টি উপাদান। নাইট্রোজেনের উৎস হিসাবে এদেশে প্রধানত দানাদার ইউরিয়া সার ব্যবহার করা হয়। অধিক ফলনের আশায় অনেক কৃষকই অতিরিক্ত পরিমানে ইউরিয়া সার ব্যবহার করে থাকেন। ফলে প্রয়োগকৃত ইউরিয়া সার বিভিন্ন উপায়ে উল্লেখযোগ্য পরিমান অপচয়সহ মাটিতে অন্যান্য পুষ্টি উপাদানের ভারসাম্য নষ্ট ও গাছের সুষম বৃদ্ধি ব্যহত হয়। সম্প্রতি বাংলাদেশে ধান ও কিছু সবজি ফসলে দানাদার ইউরিয়া সারের বিকল্প হিসাবে গুটি ইউরিয়া সারের ব্যবহার শুরু হয়েছে যা ইউরিয়া সার সাশ্রয়, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং গাছের সুষম বৃদ্ধির জন্য সহায়ক বলে প্রতীয়মান হয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে সারের ব্যাপক মূল্যবৃদ্ধির কারনে এখাতে সরকারকে প্রচুর ভর্তুকি সহায়তা দিতে হচ্ছে। এর ফলে প্রচুর বৈদেশিক মূদ্রার অপচয় সাধিত হয়। ইউরিয়া সারের সঠিকভাবে ব্যবহার করে আমরা এ সমস্যা কাটিয়ে উঠত

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি পণ্য পরিচিতকৃষির তথ্যকৃষির প্রযুক্তি

পণ্য পরিচিতি ACI Flora (ফ্লোরা) 

Flora (ফ্লোরা) নাইট্রোবেজিন ২০% ডব্লিউ/ডব্লিউ উদ্ভিদের শক্তি বৃদ্ধি করে ফুলের সংখ্যা বৃদ্ধি করে ও ঝরে পড়া রোধ করে অধিক ফলন নিশ্চিত করে পরিবেশ বান্ধব প্রয়োগ মাত্রাঃ আম/লিচু/তরমুজ/কলা/পেয়ারা এর ক্ষেত্রেঃ ২ মিলি ১ লিটার পানি মিশিয়ে যখন প্রয়োগ করা যাবেঃ ১। মুকুল আসার ২০ দিন পূর্বে ২। মুকুল আসার সময় ৩। গুঁটি ধরনের সময়। প্রয়োগ মাত্রা সবজি ও মাঠ ফসলঃ ধান, গম, ভুট্রা, সকল প্রকার সবজি মাত্রা ২-৩ মি/১ লিটার পানি -রোপনের ২০ দিন পর -১ম প্রয়োগের ২৫ দিন পর - ২য় প্রয়োগের ২০ দিন পর উপকারঃ - গাছের ডালপালা বৃদ্ধি করে। - বেশী পরিমাণ ফুল ও ফল আসে ও ঝরে পড়া কমায়। - ফল সম আকৃতির বড় হয় ও আগাম পরিপক্ক হয় ও রঙ চকচকে করে। - পানের পাতা চওড়া করে, পুরু ও সুস্বাদু হয়। কোম্পানির খুচরা মূল্যঃ ১২৭ টাকা (১০০ এম এল) কেউ কেউ ১২০ টাকা ও বিক্রি করে থাকে। ঢাকাতে এই পণ্যটি কৃষি ষ্টোর বিক্রি করে থাকে- ০১৯৭১৬২৫...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি তথ্যকৃষি পণ্য পরিচিতকৃষি প্রযুক্তিকৃষির তথ্যকৃষির প্রযুক্তিনিরাপদ খাদ্যপ্রানিসম্পদমুরগি

দেশি ডিম কেন খাবেন? এবং ডিমের ৭টি বিস্ময়কর উপকারিতা

দেশি মুরগির ডিম ভালো ভাবে বিবেচনা করলে বোঝা যাবে যে দেশি মুরগির ডিম আর ফার্মের মুরগির ডিম এর মাঝে তেমন পুষ্টি গত কোন পার্থক্য নেই , তবে সামান্য কিছু পার্থক্য থাকতে পারে । আমাদের দেশে সাধারণত দেশি মুরগী ছেড়ে দেয়া অবস্তায় পালন করা হয় , এজন্য এরা বাহিরে থেকে নানা রকম পোকা – মাকড় ,গাছের কচি পাতা ,কেঁচো,ইত্যাদি খায় এর জন্য দেশি মুরগীর ডিম পুষ্টি হয় । আবার অন্য দিকে ফার্মের মুরগীকে মাঝে মাঝে নানা রকম ভিটামিন খাবারের সাথে মিশিয়ে দেয়া হয়, সে সব খাবারে থাকে নানা রকম খনিজ পদাথ – শামুকের গুড়া ,খৈল,লবণ ,শুটকি মাছের গুড়া, ভুষি ,গম, ভুট্টা আরও অনেক কিছুর সং মিশ্রণের ফলে যে খাবের হয় তা ফার্মের মুরগিকে দেয়া হয় যার কারণে ফার্মের মুরগীর ডিমও পুষ্টিকর হয় । আবার দেশী মুরগীর তুলনায় ফার্মের মুরগীর ডিম আকারে বেশী বড় হয় , এ সব দিক বিবেচনা করলে ফার্মের মুরগীর ডিমেই বেশি পুষ্টি থাকে । দেশি ডিম কেন খাবেন? ত...

বিস্তারিত পড়ুন
কৃষি পণ্য পরিচিতকৃষি স্বাস্থ্যকৃষির তথ্যনিরাপদ খাদ্য

​জেনে নিন ফরমালডিহাইড এবং ক্যালসিয়াম কার্বাইড দিয়ে কিভাবে খাবারে ভেজাল করে

ফরমালডিহাইড এবং ক্যালসিয়াম কার্বাইড ফরমালডিহাইড এবং ক্যালসিয়াম কার্বাইড ( Formaldehyde & calcium carbide ) Ref:- prof. Ir Chanif Mahdi – ECU Environmental Health & Safety- Medical Toxicology Doctors and Physicians ( UK ) – NICRH Bangladesh – WHO Etc ফরমালিন হচ্ছে বর্ণহীন গন্ধ যোক্ত ফরমালডিহাইড ( রাসায়নিক সংকেত ফর্মালিন (-CHO-)n হল ফর্মালডিহাইডের (CH2O) পলিমার) গ্যাস থেকে পানির সাথে মিশ্রিত একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন প্রিজারভেটিভ – ইহা দেখতে সাদা – ১৮৫৯ সালে রুশ রসায়নবিদ আলেকজান্দর বুতলারভ ফরমালিনের অস্তিত্ব তাঁর প্রতিবেদনে তুলে ধরেন। পরবর্তীতে ১৮৬৯ সালে অগাস্ট উইলহেম ভন হফমেন স্বার্থকভাবে চিহ্নিত করেন। ফরমালিনের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে সংক্রমিত হতে না দেয়া। অধিকাংশ ব্যাকটেরিয়া এবং ছত্রাককে মেরে ফেলতে পারে। সাধারণত ৩৭ থেকে ৪০ শতাংশ জলীয় দ্রবণই হলো ফরমালিন এবং কখন ও এর সাথে ১০-১২ ...

বিস্তারিত পড়ুন