আই পি এমকৃষির প্রযুক্তিপোকা দমনপোকামাকড় দমনফসলের রোগ বালাই দমনরোগ দমন

মালটার স্কেল-খোসা পোকা

মালটার স্কেল/খোসা পোকা পোকা আক্রমণের লক্ষণঃ ছোট আকৃতির এ পোকা লেবু গাছের পাতা, পাতার বোঁটা, কচি ডগা এবং ফল হতে রস চুষে খেয়ে গাছের ক্ষতি করে । এরা দু’ভাবে ক্ষতি করে থাকে । প্রথমতঃ রস চুষে খাওয়ার ফলে গাছের জীবনীশক্তি হ্রাস পায় । দ্বিতীয়তঃ রস চুষে খাওয়ার সময় এরা গাছের রসের মধ্যে এক প্রকার বিষাক্ত পদার্থ অন্তঃক্ষেপ করে । ফলে আক্রান্ত পাতা, ডগা ও ফলের উপর হলদে দাগ দেখা যায় । মারাত্মকভাবে আক্রান্ত গাছের সমস্ত পাতা ফ্যাকাশে হয়ে যেতে পারে। পোকার সমন্বিত ব্যবস্থাপনাঃ আক্রমণের পূর্বে করণীয়ঃ ১. নিয়মিত বাগান পরিদর্শন করুন। আক্রমণের পর করণীয়ঃ • সম্ভব হলে পোকাসহ আক্রান্ত অংশ অপসারণ করা • হাত দিয়ে পিশে বা ব্রাশ দিয়ে ঘষে পোকা নিচে ফেলে মেরে ফেলা • আক্রমণের মাত্রা মারাত্মক হলে সর্বশেষ ব্যবস্থা হিসেবে আক্রান্ত গাছে ডায়াজিনন ৬০ ইসি বা ফেনট্রোথিয়ন ৫০ ইসি অথবা ক্লোরপাইরিফস ২০ ইসি এর যে কোন একটি ১ মিলি

বিস্তারিত পড়ুন
আই পি এমকৃষি তথ্যকৃষি প্রযুক্তিকৃষির তথ্যপোকা দমনপোকামাকড় ও রোগবালাইপোকামাকড় দমনফসলের রোগ বালাই দমনরোগ দমন

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড দমনে করণীয়

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড পিপিলিকার উপস্থিতি এ পোকার উপস্থিতিকে অনেক ক্ষেত্রে জানান দেয় । এ পোকা গাছের পাতার ও কান্ডের রস খেয়ে ফেলে এবং এক ধরনের মিষ্টি রস নিঃসরণ করে।এর আক্রমন বেশি হলে শুটি মোল্ড ছক্রাকের আক্রমন ঘটে এবং গাছ মরে যায় । এর প্রতিকার হল: ১. অল্প আক্রমনের ক্ষেত্রে হাত দিয়ে পিশে পোকা মেরে ফেলা ২. আক্রান্ত পাতা অপসারণ করা। ৩. পরভোজী পোকা যেমন : লেডিবার্ডবিটল লালন। ৪. ডিটারজেন্ট পানিতে মিশিয়ে স্প্রে করা ৫. প্রতি গাছে ৫০ টির বেশি পোকার আক্রমণ হলে এডমেয়ার ০.৫ মি.লি. / লি. হারে পানিতে মিশিয়ে শেষ বিকেলে স্প্রে করা। পরবর্তীতে যা যা করবেন না: ১. বিলম্বে ভুট্টা বপন করবেন না পরবর্তীতে যা যা করবেন: ১. আগাম ভুট্টা বপন করুন ২. উন্নত জাতের ভুট্টা বপন করুন ।

বিস্তারিত পড়ুন
আই পি এমকৃষি তথ্যকৃষি প্রযুক্তিকৃষির প্রযুক্তি

পলিথিনের শব্দে পালিয়ে যায় ইঁদুর

সন্ধ্যা থেকে শুরু হয় উপদ্রব। সারা রাত ধরে আমনের খেতে গাছের গোড়া কাটে ইঁদুরগুলো। এদের কাছে অসহায় হয়ে পড়েন কৃষকেরা। কোনো উপায় খুঁজে পাচ্ছিলেন না তাঁরা। নিজেদের অসহায়ত্বের কথা এভাবেই তুলে ধরেন নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার আমনচাষিরা। উপজেলায় এবার আমন মৌসুমের শুরুতে প্রচণ্ড খরা আর অনাবৃষ্টি দেখা দেয়। এ অবস্থায় সেচযন্ত্র ব্যবহার করে আমনের চারা রোপণ করেন কৃষকেরা। পরে বেশ বৃষ্টি হয়। লকলক করে বেড়ে ওঠে আমনের খেত। আশ্বস্ত হতে না–হতেই শুরু হয় ইঁদুরের উপদ্রব। কয়েকজন কৃষকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, পোকা দমনের কীটনাশক ব্যবহার করেও ইঁদুর তাড়ানো যাচ্ছিল না। সন্ধ্যার পর আমনের খেতে ইঁদুর এসে গাছের গোড়া কেটে দেয়। পরদিন সেই আমনের গাছ গবাদিপশুকে খাওয়ানো ছাড়া কোনো উপায় থাকে না। এমন অবস্থায় কৃষি বিভাগের দ্বারস্থ হন তাঁরা। কৃষি বিভাগের পরামর্শে পলিথিনের ঝান্ডা তৈরি করে পুঁতে দেন পুরো খেতে। বাতাসে সেই পলিথ

বিস্তারিত পড়ুন
আই পি এমউন্নত প্রযুক্তিকৃষির প্রযুক্তিপোকা দমনপোকামাকড় দমন

সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা

সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা আইপিএম বা সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা বলতে পরিবেশকে দুষণমুক্ত রেখে প্রয়োজনে এক বা একাধিক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ফসলের ক্ষতিকারক পোকা ও রোগ বালাইকে অর্থনৈতিক ক্ষতি সীমার নিচে রাখাকে বুঝায়, যাতে করে পরিবেশ দূষিত না হয়। উপকারী পোকামাকড় সংরক্ষণ, বালাই সহনশীল জাত ও আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি ব্যবহার এবং সর্বশেষ ব্যবস্থা হিসেবে বালাই নাশকের সময়োচিত ও যুক্তি সঙ্গত ব্যবহারকে নিশ্চিত করে। উপকারিতা আই পি এম গ্রহনের ফলে উপকারী পোকা মাকড়, মাছ, ব্যাঙ, পশু, পাখি ও গুই সাপ প্রভৃতি সংরক্ষণ করা যায়। বালাইনাশকের যুক্তি সঙ্গত ব্যবহার নিশ্চিত করা যায়, যথেচ্ছ ব্যবহার না হওয়ায় উৎপাদন খরচ কমে। বালাইনাশকের পরবর্তী পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রোধ করা সম্ভব হয়। এতে করে বালাইনাশক জনিত দুর্ঘটনা সহজেই এড়ানো যায়। ক্ষতিকারক পোকা-মাকড় বালাইনাশক সহনশীলতা অর্জন করার সুযোগ পায় না। ব

বিস্তারিত পড়ুন
আই পি এমকৃষি তথ্যকৃষি যন্ত্রপাতি

সেক্স ফেরোমোন

ফেরোমোন বা এক্টোহরমোন হল এমন এক ধরণের রাসায়নিক আকর্ষক পদার্থ যা কীটপতঙ্গের দেহ থেকে বাইরের পরিবেশে নির্গত হয় এবং তা ঐ কীটপতঙ্গের নিজস্ব প্রজাতির পোকাকে আকৃষ্ট করে। আর যে ফেরোমোন প্রজননের উদ্দেশ্যে তার বিপরীত লিঙ্গের পোকাকে কাছে টানে তাকে সেক্স ফেরোমোন বলে। অধিকাংশ লেপিডোপটেরা বর্গের স্ত্রী পোকা এই ফেরোমোন নিঃসরণ করে। যেমন-ডাই মিথ্যাইল ডিক্যাল ২,৬ ডাইলরিক এসিড। পোকা সেক্স হরমোন দিনের বেলায় কোন নির্দিষ্ট সময়ে নিঃসরণ করে থাকে। এই বিশেষ সময় সনাক্ত করে পোকা থেকে সেক্স ফেরোমোন আহরণ করে পরীক্ষাগারে বিশ্লেষণ করে তার গঠন জেনে কৃত্রিমভাবে তৈরি করা হয়। বিভিন্ন ফসলের পোকা ধরার জন্য ফাঁদে সেক্স ফেরোমোন ব্যবহার করা হয়। ফাঁদ দিয়ে পূর্ণবয়স্ক পুরুষ পোকা ধরা হয়। অল্প পরিমাণে পোকা ফাঁদে পড়লে পোকার আক্রমণের সময় ও তীব্রতা সম্পর্কে সঠিক ধারণা পাওয়া যাবেনা। একটি ফসলে ধরা পড়া পোকা দেখে অন্য ফসলে কি পরিমাণে পোকা...

বিস্তারিত পড়ুন