অন্যান্য ফসল

ঘাস চাষেই কোটিপতি গফুর শেখ, ঘাস চাষেই কোটিপতি

ঘাস চাষেই কোটিপতি গফুর শেখ

ঘাস চাষেই কোটিপতি গফুর শেখ

দারিদ্র্যের কাছে পরাজয় না মেনে অক্লান্ত পরিশ্রম করে অনেকের কাছেই আদর্শ হয়ে উঠেছেন নেপিয়ার জাতের ঘাস চাষ করা আবদুল গফুর শেখ। তার বাড়ি গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ি ইউনিয়নের সুলতানপুর বাড়াইপাড়া গ্রামে। নেপিয়ার ঘাস চাষ করে এখন তিনি হয়েছেন প্রায় কোটি টাকার মালিক। গফুরের পরিবার বলছে, বাবার কাছে থেকে আড়াই বিঘা জমি পেয়েছিলেন তিনি। সেই জমিতে

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় চাষাবাদে ভাগ্য বদল

প্রযুক্তির ছোঁয়ায় চাষাবাদে ভাগ্য বদল   ‘মাছে ভাতে বাঙ্গালি’ এই প্রবাদটি হাজার বছরের। আর এই মাছ ভাতের যোগান আসে আমাদের কৃষি থেকেই। দিন যত যাচ্ছে ততটাই ভোগবাদী মানুষের চাহিদা বাড়ছে ক্রমাগত। বাড়ছে দেশের জনসংখ্যা, বাড়ছে খাদ্য চাহিদা। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য দিন দিন কমছে আবাদি জমি। তবুও আমাদের এই ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার খাদ্যের চাহিদা মেটাচ্ছেন কৃষক।

কুমিরের প্রাকৃতিক প্রজনন ও সংরক্ষণ এবং কুমিরের খামার

কুমিরের প্রাকৃতিক প্রজনন ও সংরক্ষণ কুমির সরীসৃপজাতীয় প্রাণী। ইউরোপ ছাড়া পৃথিবীর সব মহাদেশেই প্রায় ১৭.৫ কোটি বছর পূর্বে ডাইনোসরের সমকালীন কুমিরের উদ্ভব ঘটলেও ডাইনোসরের বিলুপ্তির পর অদ্যবিধি এরা প্রথিবীর বিভিন্ন ভৌগলিক পরিবেশে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করে আসছে। আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র প্রায় ৩০টির মতো কুমিরের খামার আছে। খামার গুলো মেক্সিকো উপসাগরের পাড়ে লুসিয়ানা ও ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যে অবস্থিত। একবিংশ

বনসাই চাষ ও যত্ন

বনসাই চাষ ও যত্ন বনসাই একটি জীবন্ত শিল্প।একটি শক্ত কান্ড বিশিষ্ট গাছ কে একটি ছোট পটে রেখে বছরের পরবছর একে বাঁচিয়ে রাখার শিল্পকেই বনসাই বলে।প্রাণের স্পন্দন আর শিল্পকর্মের নান্দনিকতা এক সুতোয় প্রকাশ পায় বলেই বনসাই জীবন্ত শিল্পকর্ম হিসেবে পরিচিত। নগরে ইটের স্থাপনার মধ্যে এক টুকরো সবুজের উপস্থিতি এবং স্বল্প পরিসরে সহজ যত্ন-আত্তিতে বনসাই সংগ্রহ করা যায়

আগাম সবজি উৎপাদনের কৌশল : টানেল টেকনোলজি

আগাম সবজি উৎপাদনের কৌশল : টানেল টেকনোলজি বাঙালির খাদ্য তালিকায় তিনবেলা যে খাবারটি থাকে তার নাম ভাত। সাথে থাকে মাছ, মাংস, ডিম কিংবা আলু-পটলের ঝোল-চচ্চরি। অথচ এসব খাবার ঠিকঠাক হজম বা পরিপাক হওয়ার জন্য খাবারের যে উপকরণটি প্রতিদিনের খাবার তালিকায় থাকার দরকার সেটা থাকে না। গরিবের খাবার বলে অনেকের মধ্যে এটাকে এড়িয়ে যাওয়ার প্রবণতাও লক্ষ্য

স্টার আপেল: দেশে চাষযোগ্য বিদেশি ফল

স্টার আপেল: দেশে চাষযোগ্য বিদেশি ফল   স্টার আপেল গ্রীস্মম-লীয় ফল। এর বৈজ্ঞানিক নাম Chrysophyllum cainito L.। এটি মূলত সফেদা গোত্রের একটি সুস্বাদু ফল। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিদ্যমান দুর্লভ গাছসমূহের মধ্যে একটি হলো স্টার আপেল। এর কয়েকটি গাছ রয়েছে কৃষি অনুষদের মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের সামনে। গাছগুলো বেশ বড়। সবুজ আপেলের মতো ফল ধরে। ফলগুলো পাকলে হাল্কা

কফি চাষ

কফি চাষ     বাংলাদেশে উন্নত মানের চা উৎপাদনের ইতিহাস অনেক পুরনো। কিন্তু উষ্ণ পানীয়ের মধ্যে গত কয়েক দশকে কফির জনপ্রিয়তা বাড়লেও দেশে কফি চাষের ঐতিহ্য নেই। কিন্তু নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার মুন্সিপাড়া গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস কফি চাষেই সুদিনের স্বপ্ন দেখছেন। শুধুমাত্র অদম্য কৌতূহল থেকে তিনি দেশে কফি চাষের ইতিহাস বদলাতে চলেছেন। ২০০৯ সালে নার্সারি মালিক

সৌদি খেজুরের চাষ পদ্ধতি

সৌদি খেজুরের চাষ পদ্ধতি

সৌদি খেজুরের চাষ পদ্ধতি সারা বিশ্বে জলবায়ুর কুফল নিয়ে আলোচনার ঝড় চলছে। দিন দিন বৈরি জলবায়ু আমাদের নানাবিধ সমস্যার সন্মুখিন করে তুলছে। অতিরিক্ত কার্বন নিঃসরণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা যেমন বাড়িয়ে তুলছে তেমনি বাড়িয়ে তুলছে তাপমাত্রা। ফলে বন্যা, ঝড়, খরার মতো নানা দুর্যোগ আমাদের চিরচেনা পৃথিবীকে করে তুলছে অচেনা। পৃথিবীর এই পরিবর্তনের পেছনে শিল্পন্নোত দেশগুলোর রয়েছে মুখ্য

অ্যালোভেরার চাষ পদ্ধতি

ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরার চাষ পদ্ধতি

ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরার চাষ পদ্ধতি অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমারী আমাদের সবারই সুপরিচিত একটি গুরুত্বপূর্ণ ভেষজ ওষধি গাছ। দৈনন্দিন ব্যবহার্য বিভিন্ন প্রসাধনীতে প্রায়ই দাবি করা হয়ে থাকে অ্যালোভেরার উপস্থিতির কথা। ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরা দেখতে অনেকটা আনারস গাছের মত। অ্যালোভেরা গাছের গোড়া থেকেই সবুজ রঙের পাতা হয় এবং পাতাগুলো পুরু ধরনের হয় যার দুই পাশেই করাতের মতো ছোট

মিষ্টি গাছ স্টেভিয়া

ভেষজগুণে সমৃদ্ধ মিষ্টি গাছ স্টেভিয়া

মানুষের জীবনে মেধার বিকাশ এবং শারীরবৃত্তীয় পরিপক্বতা আসতে সাধারণত সময় লাগে ৪০ বছর। এ বয়সে সুস্থ ও ভালো থাকা বিষয়টি যত না অনুভূত হয় তার চেয়ে অনেক বেশি ভুক্তভোগী হতে হয় বয়স ৪০ এর কোঠা পার হতে না হতেই। ইতোমধ্যে চোখে কম দেখা, স্মরণশক্তি কমে যাওয়া, চুল পাকা, ইন্দ্রিয় শৈথিল্যতা, ব্লাড প্রেসার, ডায়াবেটিকস, বাত, গ্যাস্টিক,

চীনাবাদাম চাষ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা

চীনাবাদাম চাষ ও স্বাস্থ্য উপকারিতা   চীনাবাদাম একটি স্বল্পমেয়াদি অর্থকরী ফসল। এটি একটি উৎকৃষ্ট ভোজ্য তেলবীজ। চীনাবাদামের বীজে শতকরা ৪৮ থেকে ৫০ ভাগ তেল এবং শতকরা ২২ থেকে ২৯ ভাগ আমিষ রয়েছে। বাংলাদেশে ২০১১-১২ বছরে ৮৩ হাজার হেক্টর জমি থেকে ১ লাখ ২৬ হাজার মেট্রিক টন চীনাবাদাম উৎপন্ন হয়। দেশে হেক্টরপ্রতি চীনাবাদামের গড় ফলন মাত্র ১.৫২

মাটি ছাড়াই ঘাসের চাষ

মাটি ছাড়াই ঘাসের চাষ জমিতে ঘাস চাষের প্রচলিত ধারণা বদলে ঘরের ভেতরে মাটি ছাড়া কেবল পানি ছিটিয়ে পশুখাদ্য উৎপাদিত হচ্ছে যশোরে। হাইড্রোফনিক (মৃত্তিকাবিহীন জল চাষ বিদ্যা) ফডার নামের এই প্রযুক্তিতে পশুখাদ্য উৎপাদনে খরচ কম। এই খাদ্যে বাজারের দানাদার ও মাঠের সবুজ ঘাসের প্রায় সব পুষ্টি উপাদান আছে। তাই ধীরে ধীরে বিষয়টি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। যশোর

পুষ্টির চাহিদা মেটাতে পোকার চাষ!

পুষ্টির চাহিদা মেটাতে পোকার চাষ! নিত্য নতুন খাবার আবিষ্কার হচ্ছে, কিন্তু সেসব খাবারে প্রকৃত পুষ্টি পাচ্ছে না মানুষ। তাই বিজ্ঞানীরা বলছেন, খুব শিগগিরই ইউরোপে পোকা চাষের ফার্ম চালু হবে। পোকা ছাড়া কোনোভাবেই পুষ্টির চাহিদা পূরণ হওয়া সম্ভব নয়। কারণ, শুককীট বা ল্যাদা পোকায় প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন আছে, যা মানুষের পুষ্টির চাহিদা মেটাবে। জাতিসংঘের খাদ্য ও

থোকা থোকা মাল্টা

মাল্টা   ছোট ছোট গাছে ঝুলছে থোকা থোকা মাল্টা। একেকটি গাছে ১৫-২০টি থেকে ৪০টি পর্যন্ত। গাঢ় সবুজ রঙের মাল্টাগুলোর কোনো কোনোটিতে হলুদাভ ভাব এসেছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার জামতাড়া এলাকায় দুই বছর বয়সী এই মাল্টা বাগানের মালিক মতিউর রহমান। প্রায় আট বছর আগে ১০ বিঘা জমি লিজ নিয়ে মতিউর বাণিজ্যিকভাবে পেয়ারা, আম, লেবু, কুল ও বেদানার

বাকৃবি গবেষকের সাফল্যঃছাদে মাছ ও সবজির সমন্বিত চাষ(অ্যাকোয়াপনিক্স)

ছাদে মাছ ও সবজির সমন্বিত চাষ বাড়ির ছাদে অনেকেই সবজি বা ফলমূলের চাষ করেন। তারা চাইলে সবজি বা ফলমূলের পাশাপাশি মাছ চাষ করতে পারেন। এতে বাড়তি তেমন খরচ নেই। অন্যদিকে আমিষের জোগানও হবে। আবার খুব বেশি ঝামেলারও নয়। সম্প্রতি ছাদে সবজির পাশাপাশি মাছ চাষ পদ্ধতি নিয়ে গবেষণা করেছেন ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের একোয়াকালচার বিভাগের অধ্যাপক

বহুগুণে গুণান্বিত কাসাভা চাষ

বহুগুণে গুণান্বিত কাসাভা চাষ আফ্রিকা মহাদেশের বেশির ভাগ মানুষ কাসাভা খেয়ে জীবন ধারণ করে। তবে বাংলাদেশে এখনো এটি নিতান্তই অপরিচিত। গুল্মজাতীয় এ উদ্ভিদটি বাংলাদেশে চাষ না হলেও পাহাড়ে-জঙ্গলে দীর্ঘদিন থেকে এ গাছ জন্মায়। স্থানীয়ভাবে কাসাভার ব্যবহার আছে অনেক আগে থেকেই। গ্রামের মানুষ কাসাভার কন্দকে ‘শিমুল আলু’ বলে। গাছটির পাতা অনেকটা শিমুল গাছের মতো দেখতে বলেই হয়তো

Top