পোকামাকড় ও রোগবালাই

ছারপোকা তাড়াতে করণীয়

ছারপোকা তাড়াতে করণীয়

ছারপোকা তাড়াতে করণীয়

ছারপোকা যে কী পরিমান ভয়ঙ্কর, তা এই পোকার কামড় যারা না খেয়েছেন তারা ভাবতেও পারবেন না। অন্যদিকে যারা ভুক্তভোগী অর্থাৎ ছারপোকার যন্ত্রণায় জীবন অতিষ্ঠ যাদের, তারাই ভালো বলতে পারবেন এই পোকার অত্যাচার সম্পর্কে। তবে এই দুষ্টু পোকাটি দমন করতেও আছে বেশ কিছু উপায়। চলুন জেনে নিই- ছারপোকা মোটামুটি ১১৩ ডিগ্রি তাপমাত্রাতে মারা যায়। ঘরে ছারপোকার

মাজরা পোকার আক্রমণে ফলন কমছে

মাজরা পোকার আক্রমণে ফলন কমছে

চলছে আমন ধানের মৌসুম। ধানের এ বাড়ন্ত সময়ে পোকা দমনে উদ্যোগী না হলে ফলন বহুলাংশে হ্রাস পায়। আমন ধানে যতো ধরনের পোকার আক্রমণ হয়, তার মধ্যে হলুদ মাজরা পোকা সবচেয়ে ক্ষতিকর। হলুদ মাজরা পোকার অভিযোজন ক্ষমতা বেশি হওয়ায় আমন মৌসুমে বৃষ্টি বেশি হলেও পানিতে অনায়েসে বেঁচে থাকতে পারে। এ পোকা যে গাছে আক্রমণ করে সেই

সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা

সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা

সমন্বিত বালাই দমন ব্যবস্থা আইপিএম বা সমন্বিত বালাই ব্যবস্থাপনা বলতে পরিবেশকে দুষণমুক্ত রেখে প্রয়োজনে এক বা একাধিক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ফসলের ক্ষতিকারক পোকা ও রোগ বালাইকে অর্থনৈতিক ক্ষতি সীমার নিচে রাখাকে বুঝায়, যাতে করে পরিবেশ দূষিত না হয়। উপকারী পোকামাকড় সংরক্ষণ, বালাই সহনশীল জাত ও আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতি ব্যবহার এবং সর্বশেষ ব্যবস্থা হিসেবে বালাই নাশকের

03

রোদে হিট স্ট্রোক হতে পারে গরুর

গরমে গবাদি পশু-পাখিরা মহা বিপদে। মুখ ফুটে কিছু বলতে পারে না বলে ওদের সমস্যাটা বেশি। কখনও টানা রোদ, কখনও জলের অভাবে প্রাণ ওষ্ঠাগত। গরমে অধিকাংশ জলাশয়ের জল শুকিয়ে এসেছে। গা ডুবিয়ে স্নান তো দূর, জলপানের জন্য ঠোঁটও ডুবছে না কোথাও কোথাও। এছাড়া হিট স্ট্রোক, নাক দিয়ে রক্ত পড়া, পেট ফোলা উপসর্গ দেখা যায়। হিট স্ট্রোক

ক্ষুরা রোগ

ক্ষুরা রোগ

ইহা সকল বয়সের গরু-মহিষ ও ছাগল-ভেড়ার ভাইরাসজনিক একটি মারাত্মক অতি ছোঁয়াছে রোগ। লক্ষণঃ শরীরের তাপমাত্রা অতি বৃদ্ধি পায়। জিহ্বা, দাঁতের মাড়ি, সম্পূর্ণ মুখ গহ্বর, পায়ের ক্ষুরের মধ্যভাগে ঘা বা ক্ষত সুষ্টি হয়। ক্ষত সৃষ্টির ফলে মুখ থেকে লালা ঝরে, সাদা ফেনা বের হয়। কখনও বা ওলানে ফোসকার সৃষ্টি হয়। পশু খোঁড়াতে থাকে এবং মুখে ঘা

জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বিকল্প উপায়ে পোকা দমন

জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বিকল্প উপায়ে পোকা দমন

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে কৃষকের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে কৃষিক্ষেতে বিকল্প উপায়ে পোকা দমন। দির্ঘদিন থেকে কীটনাশক ব্যবহার করে কৃষিক্ষেতে পোকা দমন করলেও সম্প্রতি বরেন্দ্র বহুমুখি প্রকল্প ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ এর উদ্যেগে কৃষকদের কীটনাশক ছাড়াই বিকল্প উপায়ে কৃষিক্ষেতে পোকা দমন শুরু হয়েছে। উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, বোরো ক্ষেতে গাছের ডাল, বাশের কঞ্চি স্থাপন করা

Rice-stemrust-inset

ধানের রোগ

ব্যাকটেরিয়াজনিত পাতা পোড়া রোগ (Bacterial Blight) রোগের জীবাণু- Xanthomonas oryzae pv. oryzae এটি ঝলসানো রোগ নামেও পরিচিত। পাতাপোড়া রোগের ব্যাকটেরিয়া জীবাণু আক্রান- গাছ বা তার পরিত্যক্ত গোড়া, কুটা ও বীজ এবং আগাছার মধ্যেও থাকতে পারে। শিশির, সেচের পানি, বৃষ্টি, বন্যা এবং ঝড়ো হাওয়ার মাধ্যমে এ রোগ ছড়ায়। ব্যাকটেরিয়া কোষগুলো একত্রে মিলিত হয়ে ভোরের দিকে হলদে

insect-01

ধানের পোকামাকড়

বাংলাদেশে মোট ফসলী জমির প্রায় ৭৬% জমিতে ধান চাষ করা হয়।এর প্রায় ৭০% জমিতেই আধুনিক জাতের ধান চাষ করা হচ্ছ। বর্তমানে দেশে প্রায় ১০ লক্ষ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড জাতের ধান আবাদ করা হচ্ছে। স্থানীয় জাতের তুলনায় এসব জাতে পোকামাকড়ের আক্রমণ বেশি হয়। এসব আধুনিক জাতের ভাল ফলন পাওয়ার জন্য স্থানীয় জাতের তুলনায় বেশি সার ও সেচ দিতে হয়। এজন্য পোকামাকড়ের

    Top