ভোলার চরফ্যাসনে স্কুলছাদে দৃষ্টিনন্দন বাগান

ভোলার চরফ্যাসনে স্কুলছাদে দৃষ্টিনন্দন বাগান

চরফ্যাসনে স্কুলছাদে দৃষ্টিনন্দন বাগান

বিদ্যালয়ের ছাদে সারি সারি ড্রাম আর মাটির টবে বেড়ে উঠা গাছের ডালে ঝাঁকে ঝাঁকে ঝুলে থাকা নানান প্রজাতির ফল, ফুল আর সবজি দর্শনার্থীদের মনোরঞ্জন করছে।

বিদ্যালয়ের ছাদজুড়ে ফুল আর ফলের শোভিত বাগান দেখতে ভীর করছে উৎসাহী মানুষ। বিশেষ করে নিজেদের হাতে গড়া বিদ্যালয়ের বাগানে কমলা মালটা আঙ্গুরের মতো ফল দেখে শিশুরাও সীমাহীন আনন্দে ভাসছে।

ভোলার প্রত্যন্তগ্রামে ছাদবাগানের এই অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে চরফ্যাসনের মাঝের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। উপজেলা সদর থেকে ৩৫ কিমি: দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে তেতুলিয়া পাড়ের গ্রাম মাঝের চর। এই গ্রামের মধ্যাঞ্চলে মাঝের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবস্থান। বিদ্যালয়ের আছে দু’টি দ্বিতল ভবন। একটি ভবনের ছাদে ফল,ফুল আর ওষুধি বৃক্ষের বাগান এবং অপর ভবনের ছাদে সবজি বাগান।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক লাকি খানম জানান, গত বছরের জুন-জুলাই মাসে ছাদবাগান সৃজন শুরু করা হয়। শিক্ষকদের উদ্যোগে বিদ্যালয়ের স্টুডেন্ট কাউন্সিল সদস্যরা ‘সবুজ প্রকল্প’ নামে এই বাগান সৃজন করেছে। বর্তমানে বাগানের গাছে গাছে শোভা পাচ্ছে আম, ছাবেদা, কাগজি লেবু, কমলা, মালটা, আমড়া, কামরাঙ্গা, জলপাই, পেয়ারা, আঙ্গুর এবং লিচু ফল। সবজি বাগানে ক্ষেত মরিচ, বোম্বাই মরিচ, বেগুণ আর পেপে চাষ করা হয়েছে।

এছাড়াও চার জাতের গোলাপসহ ৩০ প্রজাতির ফুল এবং ১০ প্রজাতির ওষুধি গাছ আছে এই বাগানে। এই ছাদবাগান সৃজনে ব্যয় হয়েছে প্রায় ৬১ হাজার টাকা।

বিদ্যালয়ের ছাদে দৃষ্টিনন্দন এই বাগানের উদ্যোক্তা বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা সময়ের কণ্ঠস্বরকে জানান, শুরুতে নিজেদের অর্থে বাগান সৃজন করা হয়। পরবর্তীতে বাগান পরিদর্শনে এসে স্থানীয় নজরুল নগর ইউনিয়