কৃষি প্রযুক্তি

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড দমনে করণীয়

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড দমনে করণীয়

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড দমনে করণীয়

ভুট্টার জাবপোকা বা এফিড পিপিলিকার উপস্থিতি এ পোকার উপস্থিতিকে অনেক ক্ষেত্রে জানান দেয় । এ পোকা গাছের পাতার ও কান্ডের রস খেয়ে ফেলে এবং এক ধরনের মিষ্টি রস নিঃসরণ করে।এর আক্রমন বেশি হলে শুটি মোল্ড ছক্রাকের আক্রমন ঘটে এবং গাছ মরে যায় । এর প্রতিকার হল: ১. অল্প আক্রমনের ক্ষেত্রে হাত দিয়ে পিশে পোকা মেরে

তরমুজের রেড পামকিন বিটল পোকার সমাধান

তরমুজের রেড পামকিন বিটল পোকার সমাধান

তরমুজের রেড পামকিন বিটল ক্ষতির ধরণ : পামকিন বিটলের পূর্ণবয়স্কপোকা চারা গাছের পাতায় ফুটো করে এবং পাতার কিনারা থেকে খাওয়া শুরু করে সম্পূর্ণ পাতা খেয়ে ফেলে। 0. এ পোকা ফুল ও কচি ফলেও আক্রমণ করে। এর প্রতিকার হল: ১. চারা আক্রান্ত হলে হাত দিয়ে পূর্ণবয়স্ক পোকা ধরে মেরে হাত দিয়ে মেরে ফেলা ২. ক্ষেত সব সময়

পেপের মিলিবাগ বা ছাতরা পোকা

পেপের মিলিবাগ বা ছাতরা পোকা

পেপের মিলিবাগ বা ছাতরা পোকা এরা পাতা ও ডালের রস চুষে নেয় ফলে গাছ দুর্বল হয়। পোকার আক্রমনে পাতা, ফল ও ডালে সাদা সাদা তুলার মত দেখা যায়। অনেক সময় পিপড়া দেখা যায়। এর আক্রমণে অনেক সময় পাতা ঝরে যায় এবং ডাল মরে যায়। প্রতিকার : ১. আকান্ত পাতা ও ডগা ছাটাই করে ধ্বংস করা।

পেপের ভাইরাসজনিত মোজাইক রোগ

পেপের ভাইরাসজনিত মোজাইক রোগ

পেপের ভাইরাসজনিত মোজাইক রোগ এ রোগ হলে গাছে হলুদ ও গাঢ় সবুজ ছোপ ছোপ মোজাইক করা পাতা দেখা দেয়। পাতা কুচকে যায়। এর প্রতিকার হল ১. ক্ষেত থেকে আক্রান্ত গাছ তুলে ফেলা ২. ভাইরাসমুক্ত বীজ বা চারা ব্যবহার করা ৩. জাপ পোকা ও সাদা মাছি এ রোগের বাহক, তাই এদের দমনের জন্য ইমিডাক্লোরোপ্রিড ১ মি.লি.

ঝিঙ্গার ডাউনি মিলডিউ রোগ

ঝিঙ্গার ডাউনি মিলডিউ রোগ

ঝিঙ্গার ডাউনি মিলডিউ রোগ বয়স্ক পাতায় এ রোগ প্রথম দেখা যায়। আক্রান্ত পাতার গায়ে সাদা বা হলদে থেকে বাদামী রংগের তালির মত দাগ দেখা যায়। ধীরে ধীরে অন্যান্য পাতায় ছড়িয়ে পড়ে । প্রতিকার : ১. সম্ভব হলে গাছের আক্রান্ত অংশ সংগ্রহ করে ধ্বংস করা । ২. (ম্যানকোজেব+মেটালোক্সিল) গ্রুপের ছত্রাকনাশক যেমন: পুটামিল বা রিডোমিল গোল্ড অথবা

পুইশাকের পাতার দাগরোগ

পুইশাকের পাতার দাগরোগ

পুইশাকের পাতার দাগরোগ ছত্রাকের আক্রমণে এ রোগ হয়ে থাকে। এ রোগে পাতায় বৈশিষ্ট্যপূর্ণ দাগ দেখা যায়। এর প্রতিকার হল ১. রোগমুক্ত বীজ ব্যবহার করা ২. আক্রান্ত পাতা ও ডগা অপসারণ করা। ৩. বীজ লাগানোর আগে প্রোভ্যাক্স প্রতি কেজি বীজের জন্য ২.৫ গ্রাম হারে মিশিয়ে বীজ শোধন করা । ৪. কার্বেন্ডাজিম ১ গ্রাম / লি. হারে

পেয়ারার সাদা মাছি পোকা

পেয়ারার সাদা মাছি পোকা

পেয়ারার সাদা মাছি পোকা লক্ষণ : এরা পাতার রস চুষে খায় ফলে গাছ দুর্বল হয়ে পড়ে। পাতায় অসংখ্য সাদা বা হলদেটে দাগ হয় । সাদা তুলার মত বস্তু ও সাদা পাখাযুক্ত মাছি দেখা যায় । প্রতিকার : ১. সাদা আঠাযুক্ত বোর্ড স্থাপন বা আলোর ফাঁদ ব্যবহার করা। ২. আক্রান্ত পাতা তুলে ধ্বংস করা। ৩. 50

কাঁঠালের মুচি পঁচা রোগ

কাঁঠালের মুচি পঁচা রোগ

কাঁঠালের মুচি পঁচা রোগ লক্ষণ : প্রথমে ফলের/ মুচির গায়ে বাতামী দাগ হয় তার পর আস্তে আস্তে কালচে হয়ে পঁচে যায় । পঁচা অংশে অনেক সময় ছত্রাকের সাদা মাইসেলিয়াম দেখা যায় । প্রতিকার : ১. আক্রান্ত মুচি ও ফল সংগ্রহ করে পুড়ে ফেলা বা মাটি পুতে ফেলা ২. ফল বেশি ঘন থাকলে পাতলা করে দেয়া

    Top