চুয়াডাঙ্গায় পেয়ারা বাগান করে সফলতা পেয়েছেন চাষীরা

চুয়াডাঙ্গায় বিষমুক্ত পেয়ারা বাগান করে সফলতা পেয়েছেন অনেকে। ব্যবসায়ীরা বাগানে এসে কিনে নিয়ে যাচ্ছে পেয়ারা। বাজারে বিক্রিও হচ্ছে ভালো। এ পেয়ারা চাষ লাভজনক হওয়ায়, নতুন বাগান করার আগ্রহ দেখাচ্ছে অনেক চাষীই।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মনিরামপুর গ্রামের শাহিন বিশ্বাসের প্রধান ব্যবসা ছিলো চাতাল ব্যবসা। পাঁচ বিঘা জমিতে দেড় হাজার থাই পেয়ারার চারা লাগান শাহিন। পরের বছর থেকে পেতে শুরু করেছেন পেয়ারা।

তিনি জানান ,বাগান করতে খরচ হয়েছে ৩ লাখ টাকা। এ পর্যন্ত প্রায় আট লাখ টাকার পেয়ারা বিক্রি করেছেন তিনি। এ বছরে জুন মাস পর্যন্ত আরো দু’লাখ টাকার পেয়ারা বিক্রি হবে বলে আশাবাদী তিনি। বাগান থেকে বিরতিহীনভাবে পেয়ারা পাওয়া যাবে টানা পাঁচ বছর পর্যন্ত।

পোকা দমনে সেভ ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার করছেন চাষীরা, যা স্বাস্থ্যসম্মত। পেয়ারা বাগানে ভার্মি কম্পোস্ট সার ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছে চুয়াডাঙ্গা কৃষি বিভাগ। চুয়াডাঙ্গার চার উপজেলায় ৬৫০ হেক্টর জমিতে গড়ে উঠেছে পেয়ারা বাগান।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের তৈরি করা উচ্চমূল্যের ফলের তালিকায় পেয়ারা এখন অন্যতম।

Top
%d bloggers like this: