খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ১৪ হাজার ৪০২ কোটি টাকার বরাদ্দের প্রস্তাব

২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের জন্য মোট ১৪ হাজার ৪০২ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে উন্নয়ন খাতে ৪২৩ কোটি টাকা এবং অনুন্নয় খাতে ১৩ হাজার ৯৭৮ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটে এই বরাদ্দ (সংশোধিত) ছিল ১১ হাজার ৯৭৯ কোটি টাকা।
প্রস্তাবিত ২০১৭-১৮ অর্থবছরের বাজেটে মঞ্জুরী ও বরাদ্দের দাবিসমূহে বলা হয়েছে, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের এই ঘোষিত বাজেটে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের আওতায় বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করা হবে। এ সব প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ এর প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ইন্সটিটিউশনালাইজেশন অব ফুড সেফটি ইন বাংলাদেশ ফর সেফার ফুড প্রকল্প বাস্তবায়ন, সারা দেশে কৌশলগত স্থানে ১ লাখ ৫ হাজার মে. টন ধারণ ক্ষমতার ১৪৮টি নতুন খাদ্য গুদামও অবকাঠামো নির্মাণ বাস্তবায়ন, আধুনিক খাদ্য সংরক্ষণাগার নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়ন, তুরস্কের সহায়তায় স্টিল সাইলো নির্মাণ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।
নিরাপদ ও পুষ্টিমান সম্পন্ন পর্যাপ্ত খাদ্য নিশ্চিত করাই সরকারের লক্ষ্য উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় বলেছেন, এই লক্ষ্য অর্জনে আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।
তিনি বলেন, সরকারি পর্যায়ে খাদ্যশস্য ধারণক্ষমতা ২০২০ সালের মধ্যে ২৭ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীতকরণে কার্যক্রম চলমান রয়েছে। দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য স্বল্পমূল্যে খোলা বাজারে খাদ্য শস্য বিক্রয় এবং সামাজিক নিরাপত্তা বেস্টনীর আওতায় খাদ্যশস্য বরাদ্দের কর্মসূচি আমরা অব্যাহত রাখবো। সরকারি ব্যবস্থাপনায় ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ২৮ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য শস্য সংগ্রহ ও ২৭ লাখ মেট্রিক টন খাদ্য শস্য বিতরণ এবং খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির মাধ্যমে বছরের ৫ মাস স্বল্প আয়ের ৫০ লাখ পরিবারকে সরকার নির্ধারিত মূল্যে খাদ্য সহায়তা প্রদানের পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানান মুহিত।
(বাসস)